সব সময় ক্লান্তিভাব, যেসব খাবার এড়িয়ে চলবেন

সব সময় ক্লান্তিভাব, যেসব খাবার এড়িয়ে চলবেন

লাইফস্টাইল স্পেশাল

অনেকেই সারাক্ষণ ক্লান্ত বোধ করেন। এটি শুধু স্বাস্থ্যের উপরই নয়, কাজের উপরও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। এর নেপথ্যে অনেক কারণ থাকতে পারে- যেমন ক্লান্তি, মানসিক চাপ, কোনো ওষুধ এবং জীবনধারা। অনেক সময় কিছু জিনিস খাওয়ার কারণে সারাক্ষণ ক্লান্তির বোধ করতে হয়। জানুন ক্লান্তি এড়াতে কোন কোন খাবারগুলো এড়াতে পারেন।

এনার্জি ড্রিঙ্কস

এনার্জি ড্রিঙ্কস এবং অতিরিক্ত পরিমাণে ক্যাফেইন সাময়িক শক্তি দেয়। এছাড়াও, দীর্ঘ সময় ধরে এগুলো খেলে ঘুমের ধরন ব্যাহত হয়। এ কারণে সারাক্ষণ ক্লান্তির সম্মুখীন হতে হয়।

ফাস্ট ফুড  

প্রক্রিয়াজাত খাবার এবং ফাস্ট ফুডে খুব বেশি পরিমাণে অস্বাস্থ্যকর চর্বি, পরিশোধিত কার্বোহাইড্রেট এবং চিনি থাকে। এই ধরনের খাবার খেলে চিনির মাত্রা দ্রুত বৃদ্ধি পায় এবং হঠাৎ করে কমে যায়। যার ফলে আপনার শক্তি সঙ্গে সঙ্গে কমে যায়। এজন্যে আপনি ক্লান্ত বোধ করেন।

উচ্চ শর্করাযুক্ত খাবার

উচ্চ শর্করাযুক্ত খাবার খেলে সাময়িকভাবে শরীরে শক্তির মাত্রা দ্রুত বৃদ্ধি পায় এবং এরপর একইভাবে দ্রুত হ্রাস পায়, যার কারণে ক্লান্তির বোধ হতে হয়।

উচ্চ চর্বিযুক্ত খাবার

যদিও চর্বি আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়। তবে অতিরিক্ত পরিমাণে উচ্চ চর্বিযুক্ত খাবার খেলে, ক্লান্ত বোধ হয় এবং খুব ঘুম পায়। উচ্চ চর্বিযুক্ত খাবার হজম হতে প্রয়োজনের চেয়ে বেশি সময় লাগে। এছাড়া শরীরকে এগুলি হজম করতে অনেক পরিশ্রম করতে হয়। যার কারণে ক্লান্ত বোধ হয়।

লো-আয়রন জাতীয় খাবার 

শরীরের সমস্ত অংশে অক্সিজেন পৌঁছে দেওয়ার জন্য আয়রনকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়। শরীরে আয়রনের ঘাটতি হলে রক্তশূন্যতা, ক্লান্তি ও দুর্বলতা দেখা দেয়। প্রক্রিয়াজাত মাংস, ফাস্ট ফুড, পরিশোধিত শস্যে আয়রনের পরিমাণ খুবই কম।

পরিশোধিত শস্য 

চাল, পাস্তা, পাউরুটি ইত্যাদি পরিশোধিত শস্যে পুষ্টি, ফাইবার এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের পরিমাণ খুবই কম। এগুলো খেলে সুগার লেভেল দ্রুত বাড়ে এবং সমানভাবে কমতে শুরু করে, যার কারণে ক্লান্ত বোধ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *